বজ্রপাতে দেশের ভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েক জনের মৃত্যু: আহত অনেক

0
180
বজ্রপাতে দেশের ভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েক জনের মৃত্যু আহত অনেক
বজ্রপাতে মৃত্যু আহত অনেক

নিজস্ব প্রতিবেদন: বজ্রপাতে দেশের ভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েক জনের মৃত্যু হেযেছে এতে আহত অনেক। সম্প্রতি দেশে বজ্রপাতে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। একটু ঝড় বৃষ্টি হলেই বজ্রপাতে মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। শনিবারে দেশের ভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে বেশ কয়েক জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়।

আরো পড়ুন: কমলগঞ্জের চা-বাগানে অবৈদ্য ভাবে চোলাই মদের রমরমা ব্যবসা

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার হাওরে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে এসময় আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

শনিবার সকালে আজমিরীগঞ্জের হাওরে এ ঘটনা ঘটে।নিহতরা হলেন- আজমিরীগঞ্জ উপজেলার সদরের রনিয়া গ্রামের মালিক মিয়ার ছেলে মারফত আলী (১৭), একই গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে রবিন মিয়া (১৭)

আজমিরীগঞ্জ থানার ওসি মোশারফ হোসেন তরফদার জানান, হাওরে মাছ শিকারে গিয়ে তারা মারা গেছে। নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আসা হয়েছে। গুরুতর অবস্থায় তিনজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মানিকগঞ্জ: সদর উপজেলার মালঞ্চ গ্রামে বজ্রপাতে মো. জাহাঙ্গীর আলম নামে এক স্কুলশিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও ৪ জন।

শনিবার বেলা দেড়টার দিকে বাড়ির পাশে ধান মাড়াইকালে হঠাৎ বজ্রপাতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

নিহত মো. জাহাঙ্গীর আলম মানিকগঞ্জ পৌরসভার মালঞ্চ এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলে। তিনি মানিকগঞ্জ জেলা শহরের পোড়রা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ছিলেন।

স্থানীয়রা জানান,হঠাৎ বৃষ্টিসহ বজ্রপাতে মারাত্মকভাবে আহত হন জাহাঙ্গীর। সঙ্গে থাকা অন্যরাও আহত হন। আহত জাহাঙ্গীর ও আয়েশা বেগমকে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহাঙ্গীরকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বে থাকা ডা. বদরুল আলম জানান, জাহাঙ্গীর আলম হাসপাতালে আনার আগেই মারা গেছেন। আহত আয়েশা বেগমকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

মৌলভীবাজার: উপজেলায় শনিবার সকালে মাছ ধরতে ও সবজি ক্ষেতে কাজ করতে গিয়ে বজ্রপাতে পৃথক এলাকায় ২ ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউপির গল্লাসাঙ্গন গ্রামের ইসহাক আলীর ছেলে আব্দুল মতিন (৫৫) এবং উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের কাজিরবন্দ গ্রামের মৃত রমিজ উদ্দিনের ছেলে রুবেল আহমদ (২৫)।

জানা গেছে, শনিবার সকাল ১০টার দিকে বৃষ্টির মধ্যে আব্দুল মতিন বাড়ির পাশে সবজি ক্ষেতে কাজ করতে গেলে হঠাৎ বজ্রপাতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

অন্যদিকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রুবেল আহমদ (২৮) বাড়ির পাশের ছড়ায় ঠেলাজাল দিয়ে মাছ ধরছিলেন। হঠাৎ বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান। তিনি বর্ণি ইউনিয়নের কাজিরবন্দ গ্রামের মৃত রমিজ উদ্দিনের ছেলে।

বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক বজ্রপাতে দুই ব্যক্তি মারা যাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছেন।

সিলেটের বালাগঞ্জে: বজ্রপাতে ইমন আহমদ (১৪) নামে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সে বালাগঞ্জ ইউনিয়নের চকপীরপুর গ্রামের আনোয়ার মিয়ার ছেলে এবং ইমন বোয়ালজুড় বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র।

শনিবার (৬ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ইমনসহ কয়েকজন মাছ ধরতে গেলে হঠাৎ বজ্রপাতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কমলগঞ্জ: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বজ্রপাতে মো. আব্দুল লতিফ (১২) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। সে কমলগঞ্জের ইসলামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ গোলেরহাওর গ্রামের ওলিউর রহমানের ছেলে ।

শনিবার (৬ জুন) দুপুর ২ টার দিকে ঝড়-বৃষ্টির সময় দক্ষিণ গোলেরহাওড় গ্রামে জমি থেকে গরু আনতে গেলে বজ্রাঘাতে আহত হয় সে। পরে স্থানীয়রা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আপনার মতামত দিন